রাতে ১ বার ব্যবহারে ত্বক হবে ত্বক হবে চাঁদের মত ফর্সা

আমরা সারাদিন কাজে ব্যস্ত থাকার কারণে নিজেদের ত্বকের যত্ন নিতে পারিনা। আর যেহেতু আমাদের বাইরে যেতে হয় তাই আমরা সবাই বাইরে যাবার সময় কোন না কোন প্রসাধনী মেকআপ ব্যবহার করি। যেগুলো আমাদের ত্বকের ওপর একটি স্তর তৈরি করে রাখে।

তাই আমরা সারাদিন ত্বকের যত্ন নিতে না পারলেও রাতে কিছুটা সময় ব্যয় করে আমরা যে আমাদের ত্বকের যত্ন নিলে ত্বক সব সময় ফ্রেশ ও উজ্জ্বল থাকবে। আর আমরা যদি ত্বকের যত্ন না নিই তাহলে আমাদের ত্বক উজ্জ্বলতা হারাবে, ত্বকে বয়সের ছাপ দেখা দিবে এবং ত্বক উজ্জ্বলতা হারিয়ে হয়ে উঠবে কাল।

তাই আজ আমি আপনাদের সাথে এমন কয়েকটি ফেসপ্যাক শেয়ার করছি যেগুলো আপনারা রাতে খুব অল্প সময় ব্যয় করে ত্বকের যত্ন নিলে ত্বক উজ্জ্বল ফর্সা এবং ফ্রেশ রাখতে পারবেন।

তাহলে চলুন রাতে ব্যবহার উপযোগী ফেসপ্যাক গুলো কিভাবে তৈরি করতে হবে এবং এইগুলো তাকে কিভাবে ব্যবহার করতে হবে তা দেখে নিন

কলার ফেসপ্যাকঃ

একটি পাকা কলা ভালোভাবে কচলে নিয়ে তাতে 2 চা চামচ বেসন এবং  2 চা চামচ গোলাপজল ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে তৈরি করে নিন কলার ফেসপ্যাক।

রাতে শোবার পূর্বে মুখ পরিষ্কার করে কলার ফেসপ্যাকটি মুখে ভালোভাবে স্ক্রাব করে লাগিয়ে নিন।

20 থেকে 25 মিনিট পর কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন এবং ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন।

অথবা রাতে না ধুয়ে  সকালে উঠে পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

উপকারিতাঃ

ত্বককে কোমল এবং মসৃণ রাখবে।

ব্রণের দাগ বলিরেখা বুড়িয়ে যাওয়া ভাব দূর করবে।

ত্বকের মেছতার দাগ কালো ছোপ ছোপ দাগ দূর করবে।

ত্বক কে স্থায়ীভাবে অতিমাত্রায় উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে তুলবে।

চন্দনের ফেসপ্যাকঃ

একটি পরিষ্কার পাত্রে 3 চা চামচ চন্দন পাওড়ার, 2 চা চামচ অ্যালোভেরা জেল, 1 চা-চামচ অপরিশোধিত মধু এবং পরিমাণমতো গোলাপজল ভালোভাবে মিশিয়ে তৈরি করে নিন চন্দনের ফেসপ্যাক টি।

রাতে শোবার পূর্বে পরিষ্কারভাবে মুখ ধুয়ে নিন।

সম্পূর্ণ মুখে চন্দন পাউডার এর ফেসপ্যাকটি ভালোভাবে স্ক্রাব করে লাগিয়ে নিন।

তিন থেকে পাঁচ মিনিট ভালোভাবে মাসাজ করুন।

এরপর 10 মিনিট শুকানোর জন্য সময় দিয়ে ঘুমিয়ে পড়ুন।

সকালে উঠে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ভালো ভাবে ঘষে ঘষে পরিষ্কার করে নিন।

উপকারিতাঃ

ত্বককে কোমল মসৃণ ও সতেজ এবং আকর্ষণীয় করে তুলবে।

ত্বকের সব ধরনের দাগ দ্রুত সময়ে দূর করবে।

বিভিন্ন ধরনের ইনফেকশন থেকে ত্বককে রক্ষা করবে।

ত্বক কে অতিমাত্রায় উজ্জ্বল এবং ফর্সা করে তুলবে।

ত্বকে রক্ত সঞ্চালন বৃদ্ধি করবে।

অ্যাভোকাডো ফেসপ্যাকঃ

রাতে ত্বকে ব্যবহারের জন্য এভোকাডোর ফেসপ্যাক অত্যন্ত কার্যকরী।

একটি অ্যাভোকাডো ফল ভালোভাবে গুছিয়ে নিয়ে তাতে   1 চা চামচ ওটমিলের গুঁড়া 1 চা চামচ মধু এবং 1 চা চামচ টক দই ভালোভাবে গুলিয়ে তৈরি করে নিন অ্যাভোকাডোর ফেসপ্যাকটি।

রাতে শোবার পূর্বে ত্বক পরিষ্কার করে মিশ্রণটি ভালোভাবে আপনার মুখে স্ক্রাব করে লাগিয়ে নিন।

৫ থেকে 7 মিনিট ভালোভাবে স্ক্রাপ করার পর। 25 থেকে 30 মিনিট শুকাতে সময় দিন।

তারপর  কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।

উপকারিতাঃ

ত্বককে দ্রুত সময়ে অতিমাত্রায় উজ্জ্বল ও ফর্সা করে তুলবে।

অ্যাভোকাডো রয়েছে প্রচুর পরিমাণে ফসফরাস, ম্যাগনেসিয়াম, জিংক, ভিটামিন যা আমাদের ত্বকের জন্য স্কিন কেয়ার হিসেবে কাজ করে।

ত্বকের সব ধরনের দাগ দূর হবে।

বিবর্ণ এবং মলিন ত্বক অতিমাত্রায় উজ্জ্বল ফর্সা এবং মসৃণ হয়ে ওঠবে।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ

উপরে রাতে ব্যবহারের জন্য বিভিন্ন ফেসপ্যাকের উপাদানের মধ্যে আপনার ত্বকের জন্য কোন উপাদান এলার্জিক হলে তা ব্যবহারের সম্পূর্ণ বিরত থাকুন।

ফেসপ্যাক সমূহ ত্বকে লাগিয়ে গরম এবং ধুলাবালি যুক্ত স্থানে যাবেন না।

ফেসপ্যাক এর মিশ্রণ  মুখে ব্যবহারের সময় অতিরিক্ত প্রেসার দিবেন না।

 

Leave a Comment