চুলের যত্নে ও চুলকে সুন্দর করতে মুলতানি মাটির এই ব্যবহার গুলো জেনে নিন

0
172

চুলের যত্নে ও চুলকে সুন্দর করতে মুলতানি মাটি কিভাবে কাজ করে তা হয়ত অনেকে জানেনা। আজকে আমরা আলোচনা করব চুলের যত্নে কিভাবে মুলতানি মাটি আমাদের উপকার করে থাকে অর্থাৎ মুলতানি মাটির মধ্য দিয়ে কিভাবে চুলের সব সমস্যা সমাধান করতে পারব।

মুলতানি মাটি শুধু ত্বকের জন্য নয়, চুলের যত্নেও এটি ব্যবহৃত হয়। এটি চুল পরিষ্কার করার সাথে সাথে চুল মজবুত করে, খুশকি দূর করে ফেলে, এবং চুলকে সুন্দর স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করে তাহলে।

বন্ধুরা বর্তমানে আমরা শ্যাম্পু, কন্ডিশনার ব্যবহার করে থাকি। কিন্তু আগেকার দিনের রাজা বাদশাদের আমলে এরকমটা ছিল না।তখন শ্যাম্পু, কন্ডিশনার এর প্রচলন ছিল না। কিন্তু তারা চুলের যত্নে,বা  ত্বকের জন্য কোন রকমের কম্প্রোমাইজ করতো না। কিন্তু কি সে উপাদানগুলো, যার উপর ভিত্তি করে তারা তাদের ত্বকের, চুলের যত্ন নিত…..

বন্ধুরা ঠিকই বুঝতে পেরেছেন, প্রাকৃতিক উপাদানের উপর ভিত্তি করে তারা তাদের শরীরের যত্ন নিত। মুলতানি মাটি আদিম যুগ থেকে ত্বকের যত্নে ও চুলের যত্নে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। বন্ধুরা আপনারা বিশ্বাস করবেন না চুলে মুলতানি মাটি ব্যবহারের পরে আপনাদের মধ্যে এমন একটা পরিবর্তন আসবে যখন আপনারা নিয়মিত মুলতানি মাটি ব্যবহার করবেন।

তখন আপনারা দেখবেন শ্যাম্পু, কন্ডিশনার ব্যবহার করার পরে আপনাদের চুলের যে অবস্থা, শুধুমাত্র মুলতানি মাটির ব্যবহার করে আপনাদের চুল এর চেয়ে অনেক গুনে সিল্কি ও সুন্দর হয়ে যাবে।

এ ক্ষেত্রে মুলতানি মাটির সাথে অন্যান্য উপাদান মিশিয়ে চুলের জন্য তৈরি করা যায় সুন্দর সুন্দর প্যাক গুলো। যদি আমরা আমাদের চুলে এসব ব্যবহার করতে পারি তাহলে আমরা আমাদের চুলের ভাল মত যত্ন নিতে পারব।

তৈলাক্ত চুলের জন্য মুলতানি মাটির ব্যবহারঃ

তৈলাক্ত চুলের জন্য কিভাবে আমরা মুলতানি মাটির ব্যবহার করতে পারি,

  • একটি বাটিতে ৩ থেকে ৪ টেবিল চামচ মুলতানি মাটি,

১ থেকে ২টেবিল চামচ জিরা পাউডার মিশিয়ে প্যাক তৈরি করতে পারেন। এটি মিশিয়ে এক থেকে দুই ঘণ্টা রেখে দিন। তারপর চুলের গোড়া সহ পুরো চুলে ভালভাবে লাগিয়ে নিন। ১০ থেকে ১৫ মিনিট পরে তা ভালো করে শ্যাম্পু করে ফেলুন। এই প্যাকটি আপনার চুলকে সিল্কি ও মজবুত করে তুলবে।

শুষ্ক চুলের জন্য মুলতানিমাটিঃ

শুষ্ক চুলের জন্য মুলতানি মাটি কাজ করে থাকে। এজন্য যা লাগবে…

  • ৪ চা চামচ মুলতানি মাটি, ১ থেকে ২ কাপ টক দই দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করে নিন। এই প্যাকটি চুলে ভালো করে লাগান। একঘণ্টা পর শ্যাম্পু করে ধুয়ে ফেলুন। এতে চুল পড়া রোধ করার সাথে সাথে প্রাকৃতিক কন্ডিশনার হিসেবে কাজ করে থাকে। আপনাদের যদি ইচ্ছে হয় লেবুর রস যোগ করতে পারেন। কারন লেবুর রস চুল সিল্কি করতে অনেক কার্যকরী ভূমিকা পালন করে।
  • এছাড়া সাথে যদি আপনারা দুই চা চামচ মধু যোগ করেন তাহলে চুলকে অনেক বেশি ঝরঝরে দেখাবে।

রুক্ষ চুলের জন্য মুলতানি মাটিঃ

রুক্ষ চুলের জন্য মুলতানি মাটি অনেক ভালভাবে কাজ করে থাকে।  শ্যাম্পু করার আগের রাতে চুলে অলিভ অয়েল দিয়ে রাখুন। সকালে গরম পানিতে ভেজানো তোয়ালে দিয়ে চুল গুলো এক ঘন্টার জন্য পেঁচিয়ে রাখুন। এরপর মুলতানি মাটি চুলে লাগিয়ে নিয়ে এটি শুকিয়ে গেলে শ্যাম্পু দিয়ে  ধুয়ে ফেলুন। ভালো ফল পেতে এই প্যাকটি প্রতি সপ্তাহে একবার ব্যবহার করুন।

বন্ধুরা আপনাদের কাছে আরো অনেক উপাদান রয়েছে যেগুলো দিয়ে আপনারা আপনাদের চুলের যত্ন নিতে পারেন, এবং এর প্রধান উপাদান হিসেবে আপনারা অবশ্যই মুলতানি মাটির ব্যবহার করতে পারেন।

খুশকি দূর করতে মুলতানি মাটিঃ

খুশকি দুর করতে মুলতানি মাটির একটি কার্যকরী প্যাক রয়েছে। এটি ব্যবহার করলে আমাদের মাথার চুল থেকে খুশকি খুব সহজে দুর করতে পারব।

আজকে আমরা আমরা সেই ঘরোয়া পদ্ধতি নিয়ে আলোচনা করব এটি তৈরি করতে আপনার যে সকল উপকরণ গুলো লাগবে তা হল

  • ১ বাটি মুলতানি মাটি ও লেবুর রস। লেবুর রস খুশকি দূর করতে অনেক কার্যকরী ভূমিকা রাখে। এখন জানা যাক কিভাবে এই প্যাকটি আমরা তৈরী করব। মাটিকে সারারাত জলে ভিজিয়ে রাখুন তারপর সকালে উঠে তার পেস্ট বানিয়ে নিন। এরপর মুলতানি মাটি ও লেবুর রস মিশিয়ে একটি পেস্ট বানিয়ে নিন। ভালো করে ম্যাসাজ করে নিন। মিশিয়ে কমপক্ষে ৩০ মিনিট রেখেদিন।তারপর চুলে মেখে দিন। শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিন। কন্ডিশনার মাখবেন না। কিন্তু সপ্তাহে একবার এই প্যাকটি আপনি ব্যবহার করতে পারেন। বন্ধুরা কন্ডিশনার মাখার ক্ষেত্রে আপনারা ভুল করবেন না যদি আমরা ব্যাবহার করি তাহলে চুল অনেক বেশি রুক্ষ হয়ে যাবে। অন্য ক্ষেত্রে আমাদের উচিত শ্যাম্পু করার পর পরই চুলে কন্ডিশনার ব্যবহার করা।

তাহলে আজকে আমরা মুলতানি মাটির মতো একটি গুরুত্বপূর্ণ প্রাকৃতিক উপাদান কিভাবে চুলের যত্নে ব্যবহার করা যায় সে সম্পর্কে জানতে পারলাম এবং উপরের প্যাক গুলো যদি আপনারা নিয়মিত ব্যবহার করেন তাহলে চুল অনেক বেশি সুন্দর রাখতে পারবেন। ধন্যবাদ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here